আজ বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১২ ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১২ রজব, ১৪৪২ হিজরি
আজ বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১২ ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১২ রজব, ১৪৪২ হিজরি

ফেব্রুয়ারিতে বাইডেন-ট্রুডোর প্রথম বৈঠক

যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার মধ্যে গভীর ও দীর্ঘস্থায়ী সম্পর্ক নবায়নের অংশ হিসেবে আগামী ফেব্রুয়ারি মাসে সরাসরি বৈঠকে বসছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো ও যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। স্থানীয় সময় শুক্রবার কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর সাথে ফোনালাপ করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। হোয়াইট হাউজ ও কানাডার প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে পৃথক বিবৃতিতে এই তথ্য জানানো হয়।

শপথ নেয়ার পর এটাই বাইডেনের প্রথম বিদেশি সরকারপ্রধানের সাথে ফোনালাপ। কানাডার প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে প্রকাশিত বিবৃতিতে বলা হয়, ‘দুই নেতা আগামী মাসে সরাসরি সাক্ষাত করবেন। কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে গভীর ও দীর্ঘস্থায়ী সম্পর্ক নবায়নের অংশ হিসেবে এই সাক্ষাত অনুষ্ঠিত হবে।’

হোয়াইট হাউজ থেকে প্রকাশিত পৃথক বিবৃতিতে বলা হয়, দুই নেতা তাদের ফোনালাপে যুক্তরাষ্ট্র-কানাডার সম্পর্কের কৌশলগত গুরুত্ব তুলে ধরেন। পাশাপাশি কোভিড-১৯ মহামারি ও জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে মোকাবেলায় বিস্তীর্ণ কর্মসূচিতে সহযোগিতার বিষয়ে আলোচনা করেন।
এক মাসের মধ্যে বাইডেন ও ট্রুডো আবার যোগাযোগ করবেন বলে হোয়াইট হাউজের বিবৃতিতে জানানো হয়। তবে সরাসরি বৈঠকের বিষয়ে এই বিবৃতিতে কিছু উল্লেখ করা হয়নি।

ডোনাল্ড ট্রাম্পের সাথে বিবাদের বছরগুলোকে পেছনে ফেলে নতুন মার্কিন প্রেসিডেন্টকে বরণ করতে উন্মুখ জাস্টিন ট্রুডোই প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সাথে যোগাযোগ হওয়া প্রথম বিদেশি সরকারপ্রধান।

কানাডার এক বিবৃতি অনুসারে, ‘তারা টিকা সরবরাহের ক্ষেত্রে সহযোগিতার বিষয়ে কথা বলেন। একইসাথে (করোনা মোকাবেলায়) দুই দেশের চেষ্টা চিকিৎসা সেবা দানকারী ব্যক্তিদের বিনিময় ও অতি গুরুত্বপূর্ণ চিকিৎসা সামগ্রী সরবরাহের মাধ্যমে শক্তিশালী হবে বলে তারা স্বীকার করেন।’

এ ছাড়া তারা মহাদেশীয় ও আর্কটিক অঞ্চলে প্রতিরক্ষার ক্ষেত্রে সহযোগিতার সম্পর্ক বাড়ানোর বিষয়ে একমত হন।

এর আগে শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হিসেবে বাইডেনের দায়িত্ব নেয়াকে ‘নতুন যুগের’ সূচনা বলে স্বাগত জানান জাস্টিন ট্রুডো। কিন্তু উভয়ের মাঝে সম্পর্কের শুরুতেই বিরোধের ঘটনা ঘটেছে। বুধবার অভিষেকের পরই বাইডেন কানাডা থেকে যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়া কিস্টোন এক্সএল পাইপলাইন প্রত্যাহারের এক নির্বাহী আদেশ জারি করেন।

কানাডার বিবৃতিতে বলা হয়, ফোনালাপে পাইপলাইন বাতিলের পরিপ্রেক্ষিতে কানাডার অসন্তুষ্টির বিষয়ে প্রেসিডেন্ট বাইডেনকে জানানো হয়। হোয়াইট হাউজের বিবৃতিতে বলা হয়, বাইডেন এই বিষয়ে ট্রুডোর অসন্তুষ্টির বিষয়ে অবগত আছেন। তিনি কানাডার সাথে কার্যকর দ্বিপক্ষীয় সংলাপ ও ঘনিষ্ঠ সম্পর্ককে আরো এগিয়ে নেয়ার বিষয়ে পুনরায় নিশ্চিত করেছেন। পাইপলাইনের নির্মাতা টিসি এনার্জি করপোরেশন জানিয়েছে, পাইপলাইন প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তে তাদেরকে এক হাজারের বেশি নির্মাণ কাজ বাতিল করতে হবে।

শেয়ার করুন:
Share on Facebook
Facebook
Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
Print this page
Print