আজ বুধবার, ২৩ জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৯ আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১২ জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি
আজ বুধবার, ২৩ জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৯ আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১২ জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি

মা-বাবাকে মৃত্যু ঝুঁকিতে ফেলবেন না: প্রধানমন্ত্রী

করোনা সংক্রমণ রোধে সরকারের নেওয়া বিধি-নিষেধ উপেক্ষা করে যারা ঝুঁকি নিয়ে ঈদে গ্রামের বাড়ি যেতে বিভিন্ন পন্থা অবলম্বন করছেন তাদের সতর্ক করে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তাদের উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, ‘ঈদের সময় মানুষ পাগল হয়ে গ্রামে ছুটছে। কিন্তু এই যে আপনারা একসাথে যাচ্ছেন, এই চলার পথে ফেরিতে হোক, গাড়িতে হোক, যেখানেই হোক কার যে করোনাভাইরাস আছে আপনি জানেন না। কিন্তু আপনি সেটা বয়ে নিয়ে যাচ্ছেন, আপনার পরিবারের কাছে।’

‘মা-বাবা, দাদা-দাদি ভাই-বোন যেই থাকুক, আপনি কিন্তু থাকেও সংক্রমিত করবেন। তার জীবনটাও মৃত্যু ঝুঁকিতে ফেলে দেবেন। একটা ঈদে কোথাও না যেয়ে নিজের ঘরে থাকতে কী ক্ষতিটা হয়! কাজেই আপনারা এই ছোটাছুটি না করে যে যেখানেই আছে, সে সেখানেই থাকেন। সেখানেই নিজের মতো করে ঈদকে উদযাপন করেন’, বলেন প্রধানমন্ত্রী।

রোববার (৯ মে) পূর্বাচল নতুন শহর প্রকল্পের অবশিষ্ট মূল অধিবাসী এবং সাধারণ ক্ষতিগ্রস্ত মোট ১৪৪০ জনের মধ্যে প্লট বরাদ্দ-পত্র প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অংশ নেন।

এ সময় করোনার নতুন ধরন সম্পর্কে সতর্ক থাকতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান।

‘করোনাভাইরাসের সময় আপনারা মাস্ক পরে থাকবেন, সাবধানে থাকবেন। কারণ আবার একটা নতুন ভাইরাস এসেছে। এটা আরও বেশি ক্ষতিকারক। যাকে ধরে সঙ্গে সঙ্গে তার মৃত্যু হয়। সেজন্য আপনি নিজে সুরক্ষিত থাকেন। অপরকে সুরক্ষা দেন।’

করোনা সংত্রমণ থেকে দেশবাসী যেন ভালো থাকে সেজন্য মহান আল্লাহতায়ালার কাছে এই রমজানের দোয়া করার আহ্বান জানান শেখ হাসিনা।

‘এখন রমজান মাস। আমরা রোজা রাখছি এবং আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের কাছে দোয়া করেন, যেন এই করোনাভাইরাস থেকে আমাদের দেশ মুক্তি পায়। দেশের মানুষ মুক্তি পায়।’

তিনি বলেন, ‘শুধু বাংলাদেশ না সারা বিশ্বব্যাপী কিন্তু এই করোনার জন্য কত মানুষ মারা যাচ্ছে? আমাদের প্রতিবেশী দেশে প্রতিনিয়ত মারা যাচ্ছে এবং প্রতিবেশী দেশে যখন হয় স্বাভাবিকভাবে আমাদের দেশে আসারও একটা সম্ভাবনা থাকে। সেজন্য আগে থেকেই আমাদের নিজেদের সুরক্ষিত থাকতে হবে। নিজেদের সেভাবে চলতে হবে।’

গণভবন প্রান্তে অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস।

বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্র প্রান্তে বক্তব্য রাখেন গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ, সচিব শহীদ উল্লা খন্দকার। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী, সংসদ সদস্য মেহের আফরোজ চুমকিসহ অনেকে।