আজ বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারি ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৭ মাঘ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৮ জমাদিউস সানি ১৪৪২ হিজরি
আজ বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারি ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৭ মাঘ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৮ জমাদিউস সানি ১৪৪২ হিজরি

দেশে দরিদ্র্য ছিল ৪১ শতাংশ, সেটি আজ ২০ শতাংশের নিচে: তথ্যমন্ত্রী

বিএনপি সমর্থিত চিকিৎসকদের সংগঠন ড্যাবকে বিএনপি নেতাদের চোখ আর কান পরীক্ষা করার অনুরোধ জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, দেশে যেখানে দরিদ্র ছিল ৪১ শতাংশ, সেটি আজ ২০ শতাংশের নিচে। অতি দরিদ্র যেখানে ২৪ শতাংশ ছিল, সেটি আজ ১১ শতাংশে নেমে এসেছে। এই রিপোর্ট উনারা (বিএনপি নেতারা) পড়েন না। উনারা চোখ থাকতেও অন্ধ, তাই এরকম আচরণ করছেন।
শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে আওয়ামী হকার্স লীগ আয়োজিত বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় একথা বলেন তথ্যমন্ত্রী।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, আজ বাংলাদেশ এগিয়ে গেছে সেটি তাদের ((বিএনপি নেতাদের)) সহ্য হয় না। পদ্মাসেতু হয়ে গেছে, সেটি তাদের সহ্য হয় না। তাই জননেত্রী শেখ হাসিনা উন্নয়নের যে তথ্যচিত্র উপস্থাপন করেছেন জাতির সামনে, যেটি শুনে জাতি আশায় বুক বেঁধেছে, সেটি শুনে তাদের সহ্য হচ্ছে না। সেটি নিয়ে সমালোচনা করছে। বিএনপিকে অনুরোধ করবো, অন্ধ এবং বধিরের মতো সরকারের সমালোচনা না করে আপনারা আত্মসমালোচনা করুন।

তিনি বলেন, বিএনপির রিজভী আহমেদ, মির্জা ফখরুল, মাঝে মধ্যে গয়েশ্বর বাবু, ডা. জাফরুল্লাহসহ আরো কয়েকজন আছেন তারা প্রেসক্লাবে এসে বক্তব্য রাখেন। আপনারা যে জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছেন, গত তিনটি নির্বাচনে জনগণ আপনাদের ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করেছে, সেই আত্মসমালোচনা করুন। নইলে আপনারা টিভি ক্যামেরা, নয়া পল্টনের অফিস আর প্রেসক্লাবের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকবেন। এর বাইরে যেতে পারবেন না।

হাছান মাহমুদ বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে আরো বলেন, প্রথম দফায় পৌরসভার নির্বাচনে আপনারা দুটি আসনে জয়লাভ করেছেন। সেটি নিয়ে আগে আত্মবিশ্লেষণ করুন। যেদিন স্বাধীনতা পূর্ণতা পেয়েছে, অর্থাৎ ১০ জানুয়ারি, সেদিন বিক্ষোভের কর্মসূচি দিয়েছেন তারা। এই কর্মসূচি একদিন আগে কিংবা পরেও দিতে পারতো। এর অর্থ হচ্ছে স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বের প্রতি অবজ্ঞা করা। স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বে যে তারা পুরোপুরি বিশ্বাস করে না তার প্রমাণ।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন- আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহমেদ মন্নাফী, আওয়ামী হকার্স লীগের সাবেক সভাপতি এস এম জাকারিয়া হানিফ প্রমুখ।

শেয়ার করুন:
Share on Facebook
Facebook
Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
Print this page
Print