আজ শনিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৩ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরি
আজ শনিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৩ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরি

৬৪ হাজার রোগীর জন্য ১ জন অকুপেশনাল থেরাপিস্ট

বাংলাদেশে ২ কোটির বেশি মানুষ বিভিন্ন ধরনের প্রতিবন্ধিতার শিকার। এ বিশাল জনগোষ্ঠীর চিকিৎসা ও পুনর্বাসনে অকুপেশনাল থেরাপিস্ট আছেন মাত্র ২৪৬ জন। অর্থাৎ প্রতি ৬৪ হাজার রোগীর বিপরীতে আছেন একজন চিকিৎসক, যা চাহিদার তুলনায় খুবই অপ্রতুল।

বিশ্ব অকুপেশনাল থেরাপি দিবস উপলক্ষে শনিবার (৩১ অক্টোবর) রাজধানীর চ্যানেল আই ভবনে আয়োজিত গোলটেবিল বৈঠকে এসব তথ‌্য জানানো হয়।

বেলা হেলথ অ্যান্ড এডুকেশন ফাউন্ডেশনের আয়োজনে গোলটেবিল বৈঠকে প্রধান অতিথি ছিলেন সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী আশরাফ আলী খান খসরু, বিশেষ অতিথি ছিলেন নিউরোডেভেলপমেন্টাল ডিজঅ‌্যাবিলিটি প্রটেকশনাল ট্রাস্টের (এনডিডি ট্রাস্ট) চেয়ারপারসন অধ্যাপক ডা. মো. গোলাম রব্বানী।

বৈঠকে সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘প্রতিবন্ধিতা অসুস্থতা নয়। তারাও সমাজের মূল ধারার মানুষ। তারা যেন সমাজের উন্নয়নে ভূমিকা রাখতে পারেন, সেজন‌্য সরকার কাজ করছে। দেশের ১০ শতাংশ মানুষ কোনো না কোনোভাবে প্রতিবন্ধিতার শিকার। প্রতিবন্ধীদের উন্নয়নে দেশের ১০৯টি উপজেলায় প্রতিবন্ধী উন্নয়ন ফাউন্ডেশন প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে, যা দেশের সব উপজেলায় চালু করা হবে।

সিআরপির প্রতিষ্ঠাতা ও সমন্বয়কারী ড. ভেলরি এন টেইলরের সভাপতিত্বে গোলটেবিল বৈঠক সঞ্চালনা করেন বাংলাদেশ রিহ্যাবিলিটেশন কাউন্সিলের নির্বাহী সদস্য ডা. শামীম আহাম্মদ। বক্তব‌্য রাখেন সিআরপির সহযোগী অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান ডা. মো. জুলকার নায়েন, বেলা হেলথ অ্যান্ড এডুকেশন ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক ডা. রোকসানা আক্তার, সিআরপির নির্বাহী পরিচালক মো. শফিক উল ইসলাম, বাংলাদেশ হেলথ প্রফেশনস ইনস্টিটিটিউটের (বিএইচপিআই) অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মো. ওমর আলী সরকার ও জাতীয় প্রতিবন্ধী উন্নয়ন ফাউন্ডেশন বাংলাদেশের উপ-পরিচালক (পরিকল্পনা) রাজীব হাসান।

অনলাইনে অংশ নেন জাপানের টোকিও মেট্রোপলিটন বিশ্ববিদ্যালয়ের অকুপেশনাল থেরাপি বিভাগের অধ‌্যাপক ড. পিটার বোন্তে, অস্ট্রেলিয়ার মিডওয়ের্স্টান বিশ্ববিদ্যালয়ের অকুপেশনাল থেরাপি বিভাগের অধ‌্যাপক ড. মার্ক কোভিক এবং কানাডার অকুপেশনাল থেরাপিস্ট সুপারভাইজার মো. এহসানুল আম্বিয়া প্রমুখ।

অকুপেশনাল থেরাপি একটি বিজ্ঞানসম্মত চিকিৎসা পদ্ধতি, যা একজন ব্যক্তির শারীরিক, মানসিক, সামাজিক এবং পরিবেশগত সমস্যা দূর করার মাধ্যমে তাকে দৈনন্দিন কাজে যথাসম্ভব স্বনির্ভর করে।

শেয়ার করুন:
Share on Facebook
Facebook
Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
Print this page
Print