আজ শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১০ বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১০ রমজান, ১৪৪২ হিজরি
আজ শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১০ বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১০ রমজান, ১৪৪২ হিজরি

ভারতীয় পেঁয়াজ আসার খবরেই দেশি পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি

খুলনার বাজারে ভারতীয় পেঁয়াজ আসার খবরেই দেশি পেঁয়াজের দাম আর একদফায় বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রতি কেজিতে পাইকারি বাজারে ৭ থেকে ৮ টাকা বেশি নেওয়া হচ্ছে।

কারণ হিসেবে ব্যবসায়ীরা বলছেন, ভারতীয় পেঁয়াজ আসার খবরে বাজারে দেশি পেঁয়াজের আমদানি কমে যাওয়ায় দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে, চায়না ও হল্যান্ড থেকে আমদানি করা পেঁয়াজের দর একই রয়েছে।

খুলনার কদমতলার পাইকারি আড়তে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বেশ কয়েকদিন ধরে ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি করার কথা শুনে খুলনার আড়তে দেশি পেঁয়াজের বাজার দর কমতে থাকে। এক পর্যায়ে পাইকারি বাজারে প্রতি কেজি ২৩ থেকে ২৮ টাকায় নেমে আসে। তবে ২ জানুয়ারি ভারতীয় পেঁয়াজ আমদানি শুরু হলে দেশীয় পেঁয়াজের দাম আকস্মিক ৭ থেকে ৮ টাকা বাড়ানো হয়।

খুলনার পাইকারি আড়তে প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজ ৩২ থেকে ৩৪ টাকায় বিক্রি হতে দেখা যায়। আর চায়না পেঁয়াজ ১৮ থেকে ২২ টাকা ও হল্যান্ডের ২৫ থেকে ২৬ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। খুচরা বাজারে এখনও তেমন কোন প্রভাব না পড়লেও দু’একটা দোকানে ৪৫ টাকায় বিক্রি হতে দেখা গেছে। অধিকাংশ খুচরা ব্যবসায়ী কয়েকদিন যাবৎ ৩৫ থেকে ৪০ টাকায় দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে। আর খুচরা বাজারে চায়না পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২৫ থেকে ৩০ টাকা, হল্যান্ডের পেঁয়াজ ৩০ থেকে ৩৫ টাকা।

সুমন ট্রেডিং’র সত্ত্বাধিকারী মো. মহিউদ্দিন আহমেদ জানান, দেশি পেঁয়াজ প্রতি কেজি ৩০ থেকে ৩২ টাকায় বিক্রি করছি। এর আগে বিক্রি হয়েছে ২৫ থেকে ২৭ টাকা।

দাম বাড়ার কারণ সম্পর্কে তিনি জানান, দেশি পেঁয়াজের তেমন কোন গাড়ি আসছে না। এছাড়া ভারতীয় পেঁয়াজ খুলনায় আসতে এখনো ২/৩ দিন লাগবে।

মেসার্স কেবিটু’র আব্দুর রাজ্জাক জানান, দেশি পেঁয়াজ ৩১ থেকে ৩২ টাকা। এর আগে ২৩ থেকে ২৪ টাকা ছিল।তবে, ভারতীয় পেঁয়াজ বন্দরে ঢুকলেও এখনও খুলনার বাজারে আসেনি।

তাজ ট্রেডিং’র আলমগীর হোসেন জানান, দেশি পেঁয়াজ ভালোটি ৩২ থেকে ৩৪ টাকায় বিক্রি করছি। এর আগে ২৬ থেকে ২৮ টাকা ছিল। পেঁয়াজ ব্যাপক আমদানি না হওয়ায় কারণে দেশি পেঁয়াজের দাম একটু বেড়েছে।

ময়লাপোতার কেসিসি সন্ধ্যা বাজারের খুচরা বিক্রেতারা জানান, দেশি পেঁয়াজ (সাধারণ) ৩৫ এবং ভালোটা ৪৫ টাকায় টাকায় বিক্রি করছি।

পূর্ব রূপসা বাজারের খুচরা ব্যবসায়ী মো. আল আমিন শেখ জানান, দেশি পেঁয়াজ কিনেছি ৩৪ টাকায়, আর বিক্রি করছি ৪০ টাকায়। যা এর আগে ২৩ থেকে ২৭ টাকায় কিনেছি।

খুলনার কদমতলার আড়তের পাইকারী ব্যবসায়ী মেসার্স সোহেল ট্রেডার্স’র সত্ত্বাধিকারী তাজুল ইসলাম জানান, দেশি পেঁয়াজ ৩০ থেকে ৩২ টাকায় বিক্রি করছি। এর আগে দেশি পেঁয়াজ ছিল ২৫ থেকে ২৮ টাকা। তবে বাজারে ভারতীয় পেঁয়াজ আসছে জেনে দাম কমার আশায় ক্রেতা নেই বললেই চলে। এ কারণেই দেশি পেঁয়াজের দাম কিছুটা বাড়তি।

শেয়ার করুন:
Share on Facebook
Facebook
Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
Print this page
Print