আজ সোমবার, ৩রা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১৮ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৭ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি
আজ সোমবার, ৩রা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১৮ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৭ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

হংকংকে হারিয়ে শেষ চারে ভারত

হংকংকে উড়িয়ে দিয়ে এশিয়া কাপের সুপার ফোরে জায়গা করে নিল ভারত। ভারতের রানপাহাড়ে চাপা পড়ল হংকং। পাকিস্তানের পর হংকংয়ের বিপক্ষে সহজ জয়ে আরও একবার এশিয়া কাপ জয়ের এক পা এগিয়ে গেল গত দুইবারের শিরোপাজয়ীরা।
বুধবার দুবাইয়ে কোহলি-সূর্যকুমারের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে রানপাহাড় গড়ে প্রথম ইনিংস শেষেই স্বস্তিতে ছিল রোহিত শর্মার দল। বাকি ছিল হংকংকে দ্রুত গুটিয়ে দিয়ে ম্যাচ জয়ের আনুষ্ঠানিকতা।

যদিও ম্যাচে পুরোপুরি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারেনি হংকং। তবে নতুন এই দলটির মধ্যে চেষ্টার কোনো কমতি ছিল না। শেষ বল পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে গিয়েছে দলটি। তবে ২০ ওভার ব্যাটিং করে ১৫২ রান সংগ্রহ করে হংকং। ৪০ রানের জয় নিয়ে শেষ চার নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়ে রোহিতের ভারত।

হংকংয়ের পক্ষে সর্বোচ্চ হায়াত ৪১ রান করেন। এছাড়া কেডি শাহ ৩০ ও জিসান আলী করেন ২৬ রান। ভারতের হয়ে জাদেজা, আবেশ, ভুবেনেশ্বর ও আশদ্বীপ ১টি করে উইকেট লাভ করেন।

এর আগে, টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে কিছুটা ধীরগতিতেই শুরু করে ভারত। পাওয়ারপ্লে তথা প্রথম ছয় ওভার থেকে ১ উইকেট হারিয়ে ৪৪ রান তোলে তারা। ইনিংসের পঞ্চম ওভারে আয়ুশ শুক্লার বলে মিড অফে এজাজ খানের দারুণ এক ডাইভিং ক্যাচে সাজঘরের পথ ধরেন ভারতীয় অধিনায়ক রোহিত শর্মা (১৩ বলে ২১)।

অন্য ওপেনার লোকেশ রাহুল খেলেছেন কচ্ছপগতির এক ইনিংস। ৩৯ বলে ২ চারে ৩৬ রান করে মোহাম্মদ ঘাজানফারের বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন তিনি। এরপরই তৃতীয় উইকেট জুটিতে ঝড় তোলেন কোহলি ও সূর্যকুমার। দীর্ঘদিন ব্যাট হাতে বাজে ফর্মের সঙ্গে লড়তে থাকা কোহলি এদিন ফিফটিকেই যেন পাখির চোখ করেছিলেন। সেজন্য কিছুটা রয়ে সয়ে খেলে ৪০ বলে টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারে নিজের ৩১তম অর্ধশতক তুলে নেন তিনি।

ততক্ষণে অন্যপ্রান্তে রুদ্ররূপ ধারণ করেছেন সূর্যকুমার। হংকংয়ের বোলারদের ছাতু বানিয়ে মাত্র ২২ বলে অর্ধশতকের মাইলফলক পার করেন তিনি। শেষ ওভারে তার ব্যাট যেন হয়ে ওঠে খাপখোলা তলোয়ার। পেসার আরশাদের করা সেই ওভারের প্রথম ৩ বলে টানা ৩ ছক্কা হাঁকান তিনি। এরপরের বলটি ডট দিয়ে পঞ্চম বলে আবার শূন্যে ভাসিয়ে বল সীমানাছাড়া করেন তিনি। ওভারের শেষ বল থেকে নেন ২ রান। সমান ৬ চারে এবং ৬ ছক্কায় ২৬ বলে ৬৮ রানের বিধ্বংসী ইনিংস খেলেন তিনি। অন্যদিকে ৪৪ বলে ১ চার এবং ৩ ছয় হাঁকিয়ে ৫৯ রানে অপরাজিত থাকেন কোহলি।

শেয়ার করুন
Share on Facebook
Facebook
Pin on Pinterest
Pinterest
Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin