আজ বুধবার, ৩০শে নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৬ই জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি
আজ বুধবার, ৩০শে নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৬ই জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

কোনো কৃষি জমি নষ্ট করতে দেয়া হবে না

প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা ও ঢাকা-১ আসনের সংসদ সদস্য সালমান এফ রহমান বলেছেন, দেশের কোনো কৃষি জমি নষ্ট করতে দেয়া হবে না। যে সব জায়গায় কৃষি কাজ হয় না সেখানে কলকারখানা গড়ে তোলা হবে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সকল স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দিতে শেখ হাসিনা দিনরাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। আজ তার সমস্ত পরিকল্পনাকে কাজে লাগিয়ে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশকে অনেকদূর এগিয়ে নিয়ে গেছে। করোনা মহামারির মধ্যেও দক্ষিণ এশিয়ায় আমাদের দেশের অবস্থান অনেক ভালো। তিনি আরো বলেন, অর্থনৈতিকভাবে দেশ অনেক এগিয়ে গেছে। তিনি দোহার-নবাবগঞ্জে ফজলুর রহমান ফাউন্ডেশন ও এনজিওদের সমন্বয়ে উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড পরিচালনার আহ্বান জানান। তিনি এনজিও ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ-এর চেয়ারম্যান হেদায়েত উল্লাহ আল মামুনের উদ্দেশ্যে বলেন, এনজিওদেরকে এমন একটি প্ল্যাটফরম ও পরিকল্পনা তৈরি করে দোহার-নবাবগঞ্জে বাস্তবায়ন করা হউক যা মডেল হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর মাধ্যমে সমগ্র দেশে তৃণমূল পর্যায়ে বাস্তবায়ন করা হবে।

দোহার-নবাবগঞ্জের উন্নয়নের জন্য যে সব পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে তা পর্যায়ক্রমে বাস্তবায়ন করা হলে বাংলাদেশে দোহার-নবাবগঞ্জ মডেল উপজেলা হিসেবে গড়ে উঠবে। গতকাল দুপুরে আব্দুল ওয়াছেক মিলনায়তনে উপজেলা কেন্দ্রীয় সমবায় সমিতি (বিআরডিবি) আয়োজিত ৩৭তম বার্ষিক সভায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানের উদ্বোধক ছিলেন সাবেক সিনিয়র অর্থসচিব ও এনজিও ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ-এর চেয়ারম্যান হেদায়েত উল্লাহ আল মামুন। উপজেলা কেন্দ্রীয় সমবায় সমিতি (বিআরডিবি)’র সভাপতি ও নবাবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক দেওয়ান আওলাদ হোসেন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। এর আগে সকালে সমিতির কার্যালয় থেকে একটি শোভাযাত্রা বের করা হয়। পরে অলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় অতিথিদের সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির সম্মাননা স্মারক গ্রহণ করেন ফজলুর রহমান ফাউন্ডেশনের মহাসচিব বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রউফ। আলোচনা শেষে সমিতির নির্বাচিত ১৭টি ক্যাটাগরিতে পুরস্কার প্রদান করা হয়। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা তাইবুর রহমান। আরো উপস্থিত ছিলেন দোহার-নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ রবীন্দ্রনাথ মন্ডল, সাবেক অধ্যক্ষ মানবেন্দ্র দত্ত ও সমিতির ভাইস চেয়ারম্যানসহ ব্যবস্থাপনা কমিটির পরিচালকবৃন্দ।

এদিকে দোহারে উপজেলা কমপ্লেক্স ভবন ও হলরুম নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়েছে। শনিবার দুপুরে উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে সালমান এফ রহমান ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ কাজের উদ্বোধন করেন। দোহার উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আলমগীর হোসেনের সার্বিক সহযোগিতায় ও স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের বাস্তবায়নে ৭ কোটি ২০ লাখ টাকা ব্যয়ে উপজেলা কমপ্লেক্স ভবন ও হলরুম নির্মাণ করা হচ্ছে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন দোহার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন, ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ফজলুল হক, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম বাবুল, উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি জ্যোতি বিকাশ চন্দ্র, উপজেলা প্রকৌশলী হানিফ মোহাম্মদ মুর্শিদী, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সুজাহার বেপারী, কুসুমহাটি ইউপি চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন আজাদ প্রমুখ।

শেয়ার করুন
Share on Facebook
Facebook
Pin on Pinterest
Pinterest
Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin